Deprecated: The each() function is deprecated. This message will be suppressed on further calls in /customers/7/c/9/bangladeshembassy.de/httpd.www/wp-content/plugins/js_composer/include/classes/core/class-vc-mapper.php on line 111 Delivery procedure of MRP | Embassy of Bangladesh, Berlin Deprecated: Function create_function() is deprecated in /customers/7/c/9/bangladeshembassy.de/httpd.www/wp-content/themes/embassy/functions.php on line 220 Deprecated: Function create_function() is deprecated in /customers/7/c/9/bangladeshembassy.de/httpd.www/wp-content/themes/embassy/functions.php on line 268 Deprecated: Function create_function() is deprecated in /customers/7/c/9/bangladeshembassy.de/httpd.www/wp-content/themes/embassy/functions.php on line 270

পাসপোর্টের স্ট্যাটাস চেক (E-Passport / MRP Status Check) ডেলিভারি সংক্রান্তঃ

*** আপনার পাসপোর্টের বর্তমান স্ট্যাটাস জানতে নিচের লিংক অনুসরণ করুনঃ http://www.bangladeshembassy.de/mrp-status/

***E-Passport Status Check: ডেলিভারি স্লিপ নাম্বার (5103-XXX) দিয়ে পাসপোর্টের স্ট্যাটাস চেক করতে হয়। XXX এর জায়গায় স্লিপের শেষ নাম্বার গুলো দিতে হবে। যেমন: 5103-06

*** Machine Readable passport (MRP) Status Check: DEU নাম্বারের শেষের ৫ ডিজিট দিয়ে পাসপোর্টের স্ট্যাটাস চেক করতে হয়।

*** সাধারণত আবেদন করার ৬-৮ সপ্তাহের মধ্যে পাসপোর্ট ডেলিভারির জন্য প্রস্তুত হয়।

*** পোস্টাল সার্ভিসের মাধ্যমে E-Passport পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে চাইলে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুনঃ

  • পাসপোর্টের স্ট্যাটাস Ready in Embassy দেখানোর পর দূতাবাসের ঠিকানায় বাবল পেপার যুক্ত A5 মাপের ফেরত খাম পাঠাবেন। (Ready in Embassy নিশ্চিতভাবে না দেখে ফেরত খাম পাঠাবেন না)
  • আপনার ডেলিভারি স্লিপের ওপর নিজের ফোন নাম্বার লিখে ডেলিভারি স্লিপ-টি ফেরত খামের সাথে স্টাপল করে দিতে হবে। সাথে অবশ্যই আপনার বাবা অথবা মায়ের NID/ জাতীয় পরিচয়পত্র এর ফটোকপি দিতে হবে।
  • পোস্টাল সার্ভিসের মাধ্যমে ই-পাসপোর্ট গ্রহন করতে চাইলে একটি কাগজে স্বাক্ষর সহ লিখিত আবেদন দিতে হবে ।
  • ফেরত খামের উপর ৫ (পাঁচ) ইউরোর ডাকটিকেট (Briefmarken) বসিয়ে ফেরত খামের উপর প্রাপক হিসেবে আপনার নাম / ঠিকানা নিজে লিখে দিবেন।
  • ফেরত খাম Einschreiben (Registered mail) করার প্রয়োজন নেই, শুধুমাত্র অরিজিনাল ডাকটিকিট (Briefmarken) লাগাবেন।
  • পোস্টাল/কুরিয়ার সার্ভিসের অবহেলা/ত্রুটির কারণে পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে দূতাবাস দায়ী নয়।